April 20, 2024
Breaking News

ধর্নায় বসলেন চিকিৎসকেরা

📝নিজস্ব সংবাদদাতা-Todays Story:জুলাই মাস থেকে বেতন বন্ধ।টানা চারমাস নানান মহলে আবেদন নিবেদনে কাজ না হওয়ায় এবার আন্দোলন, ধর্নায় বসেছেন অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব হাইজিন অ্যান্ড পাবলিক হেলথ-র স্নাতকোত্তর পড়ুয়া চিকিৎসকদের একাংশ। তাই মঙ্গলবার পড়ুয়ারা কাজ ছেড়ে কেন আন্দোলন করছেন এবং প্রতিষ্ঠানের সুনাম নষ্ট করছেন, এই মর্মে সমস্ত বিভাগের প্রধানের কাছে চিঠি পাঠান ওই প্রতিষ্ঠানের অধিকর্তা চিকিৎসক উৎপল কুমার চট্টোপাধ্যায়।অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব হাইজিন অ্যা ন্ড পাবলিক হেলথ সূত্রে জানা গিয়েছে, বিভাগীয় প্রধানদের কাছে চিঠি পাঠিয়ে আন্দোলনরত পড়ুয়াদের নাম ও অন্যাধন্যক তথ্যজ জানতে চেয়েছেন প্রতিষ্ঠানের অধিকর্তা। প্রয়োজনে এই ধরণের আচরণের জন্য কর্তৃপক্ষের তরফে কড়া ব্যিবস্থা নেওয়ার ইঙ্গিত তিনি দিয়েছেন। স্নাতকোত্তর পড়ুয়াদের জন্য প্রতিষ্ঠানের দীর্ঘ সুনাম নষ্ট হলে তার জন্য কর্তৃপক্ষ প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবেন বলেও তিনি জানান।

এই নির্দেশের পরেই ক্ষুব্ধ চিকিৎসকদের একাংশ।তাঁরা জানাচ্ছেন, স্নাতকোত্তর পড়ুয়ারা স্টাইফেন না পেলে পড়াশোনা ও সংসার চালাবেন কী ভাবে, এই প্রশ্নের উত্তর খোঁজার পরিবর্তে শাস্তির ভয় দেখানো অমানবিক। তাঁরা জানাচ্ছেন, জুলাই থেকে অক্টোবর মাস পর্যন্ত জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের কেন বেতন বন্ধ থাকবে, এর উত্তর প্রতিষ্ঠানের অধিকর্তার কাছে বারবার জানতে চাইলেও পাওয়া যায়নি। সম্প্রতি কয়েক দিন আগে আন্দোলনকারী চিকিৎসক পড়ুয়াদের দাবি নিয়ে চিকিৎসকের সংগঠন ওয়েস্ট বেঙ্গল ডক্টর্স ফোরামের দু’জন সদস্য্ অধিকর্তার সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন। কিন্তু তিনি অসুস্থ জানিয়ে ছিলেন। তাই বেতন নিয়ে কোনও কথাই হয়নি। তারপরেই অধিকর্তার এই ধরণের নির্দেশ সমস্যা়র জট খোলার সদিচ্ছা নিয়েই প্রশ্ন তুলছে বলে মনে করছেন একাংশ।দেশজুড়ে করোনা মহামারির প্রকোপ অব্য হত। এই পরিস্থিতিতে গ্রাম থেকে শহর সর্বত্র জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞেরা কাজ করে যাচ্ছেন। মহামারি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে তাঁদের ভূমিকা সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ। তাঁদের পরামর্শেই সংক্রমণ রুখতে প্রয়োজনীয় সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে। সংক্রমিত এলাকাতে মানুষকে সুস্থ রাখতে তাঁরাই প্রথম সারির যোদ্ধা। এই পরিস্থিতিতে মাসের পর মাস কেন তাঁদের বেতন বন্ধ থাকবে, আর সে নিয়ে কর্তৃপক্ষের কেন হেলদোল থাকবে না, সে প্রশ্ন জোরালো হয়ে উঠেছে। এই ঘটনা প্রসঙ্গে উৎপল কুমার চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি উত্তর দেননি।

error: Content is protected !!