February 26, 2024

হাসপাতাল থেকে ছুটি ‘মহাগুরু’র

নিজস্ব সংবাদদাতা, Todays Story: সোমবার হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেলেন মিঠুন চক্রবর্তী। চওড়া হাসি হেসে নিজেই সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন সে কথা। খবর ছড়াতেই কলকাতা স্বস্তির শ্বাস ফেলেছে। টানা দু’রাত প্রায় জেগে কাটিয়ে অবশেষে অনুরাগীদের মুখে যেন যুদ্ধ জয়ের হাসি। কিন্তু ‘মহাগুরু’র উত্তরে নতুন ধোঁয়াশা তৈরি। শনিবার অসুস্থ তারকা অভিনেতার যাবতীয় ডাক্তারি পরীক্ষার পরে মেডিক্যাল টিম জানিয়েছিল, তাঁর স্ট্রোক হয়েছে। এদিন কিন্তু মিঠুন নিজমুখে জানালেন, তাঁর ডায়াবেটিসের কথা! যা তাঁর আপ্তসহকারী এবং পরিবার শুরু থেকে বলে এসেছেন। এদিন শহরের বেসরকারি হাসপাতালের সামনে সকাল থেকে সাংবাদিকদের ভিড়। কালো টুপিতে মাথা ঢেকে, গায়ে সাদা চাদর জড়িয়ে, রোদচশমায় চোখ ঢেকে তিনি বড় ছেলে মিমোকে সঙ্গে নিয়ে বেরিয়ে আসেন। তাঁদের ঘিরে নিরাপত্তীরক্ষীদের বলয়। অপেক্ষারত সাংবাদিকদের তাঁরা সরিয়ে দিতে চাইলে সঙ্গে সঙ্গে বাধা দেন তিনি। বলেন, ‘‘আজ ওঁদের দিন। ওঁরা থাকবেন। আজ আপনারা পিছনে সরে যান।’’ পাশে রাখেন মিমোকে। তারপরেও চওড়া হেসে জানান, ভাল আছেন তিনি। সব ঠিক আছে। আর কোনও সমস্যা নেই। তারপরেই বলেন, ‘‘আমি খেতে ভালবাসি। যা মুম্বই বা বেঙ্গালুরুতে পাই না সেটাই কলকাতায় এলে চেটেপুটে খাই। এই খাওয়াই আমার বড় শত্রু। অতিরিক্ত খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েছিলাম।’’ তখনই তিনি সংবাদমাধ্যমকে জানান, তাদের মাধ্যমে তিনি সবাইকে এই বার্তা দিতে চান, সব বয়সেই খাওয়ার পরিমাণ যেন নিয়ন্ত্রণে থাকে। অতিরিক্ত খাওয়া ভাল নয়। পাশাপাশি, যাঁদের ডায়াবেটিস তাঁরা মিষ্টি না খেলেই ভাল থাকবেন এমন ভাবাও ভুল। যে কোনও সময় ডায়াবেটিস সমস্যা তৈরি করতে পারে। আর ইনসুলিনকে কেউ যেন ভয় না পান। এটি শরীর সুস্থ থাকতে যথেষ্ট সহযোগিতা করে। পথিকৃতের শুটে আবার কবে থেকে দেখা যাবে তাঁকে? মানবিক মিঠুনের উত্তর, ‘‘আমি কাল থেকেই শুট করতে রাজি। এটা শুধুই আমার চাওয়া। আসলে চাই না, আমার জন্য ওর কোনও সমস্যা হোক। প্রচুর অভিনেতা নিয়ে ছবি করছে তো। তবে পথিকৃৎ কিছুটা সময় নিচ্ছে। পুরোটা আবার সাজাবে। সম্ভবত ২৫ বা ২৬ তারিখ থেকেই আবার কাজে ফিরব।’’

error: Content is protected !!